ঢাকা , শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইইউ নাগরিকদের ব্রিটেনে থেকে যাওয়ার প্রস্তাব দিলেন থেরেসা মে

অনলাইন ডেস্ক :
  • আপডেটের সময় : ০৪:১২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭
  • / ১৩৫৮ টাইম ভিউ

Britain's Prime Minister Theresa May arrives for an European Union leaders summit, on June 22, 2017, at the European Council in Brussels. / AFP PHOTO / BELGA / THIERRY ROGE / Belgium OUT (Photo credit should read THIERRY ROGE/AFP/Getty Images)

ব্রেক্সিটের পরও ব্রিটেনে থেকে যাওয়া ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) নাগরিকদের জন্য নতুন এক প্রস্তাব দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। তিনি বলেছেন, ব্রেক্সিটের পরও একজন বৈধ অভিবাসী, যিনি ইইউ নাগরিক তিনি একজন ব্রিটিশ নাগরিকের সমান সব ধরনের অধিকার পাবেন। যাতে করে তারা ব্রেক্সিট এর পরেও শিক্ষা, চিকিৎসা সেবা এবং অন্যান্য সুযোগ সুবিধা পেতে পারে।
তিনি আরো বলেন, ইউকে কখনও চায় না যে বর্তমান ব্রিটেনের অভিবাসী কোনো ইউরোপীয় নাগরিক দেশ ত্যাগ করুক। এই ব্যবস্থা পারস্পরিক হবে বলেও আশা করছেন তিনি। ব্রাসেলসে ইউরোপীয় কাউন্সিলের সম্মেলনে মে বলেন ‘কেউ কোনো ধরনের কষ্টকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে না।’
বর্তমানে ব্রিটেনে ৩০ লক্ষ ২০ হাজার ইইউ নাগরিক রয়েছেন। যাদের অনেকের মনে ভয় রয়েছে যে তাদেরকে হয়তোবা ফেরত পাঠানো হবে। তবে মে জোর দিয়ে ইউকে’র ২৭ টি ইইউ পার্টনারদের বলেন, দেশটি চায় না কেউ সেখান থেকে চলে যাক বা কারো পরিবার দুভাগ হয়ে যাক।
এদিকে তার এই প্রস্তাবে সতর্ক মন্তব্য করতে দেখা গেছে কয়েকজন বিশ্ব নেতাকে। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল এটাকে ‘একটা ভাল শুরু’ এই বলে বর্ণনা করেছেন। তবে তিনি বলেছেন ব্রেক্সিটকে ঘিরে অনেক ইস্যু রয়েছে যেগুলো সমাধান করতে হবে। ইইউ এর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, যখন ইউকের পুরো প্রস্তাব সোমবার প্রকাশিত হয় তখন তারা এর ‘লাইন বাই লাইন’ পড়ে দেখেছে। ইইউ থেকে বের হয়ে যাওয়ার জন্য ইউকের হাতে ২০১৯ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত সময় রয়েছে। বিবিসি।

পোস্ট শেয়ার করুন

ইইউ নাগরিকদের ব্রিটেনে থেকে যাওয়ার প্রস্তাব দিলেন থেরেসা মে

আপডেটের সময় : ০৪:১২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

ব্রেক্সিটের পরও ব্রিটেনে থেকে যাওয়া ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) নাগরিকদের জন্য নতুন এক প্রস্তাব দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। তিনি বলেছেন, ব্রেক্সিটের পরও একজন বৈধ অভিবাসী, যিনি ইইউ নাগরিক তিনি একজন ব্রিটিশ নাগরিকের সমান সব ধরনের অধিকার পাবেন। যাতে করে তারা ব্রেক্সিট এর পরেও শিক্ষা, চিকিৎসা সেবা এবং অন্যান্য সুযোগ সুবিধা পেতে পারে।
তিনি আরো বলেন, ইউকে কখনও চায় না যে বর্তমান ব্রিটেনের অভিবাসী কোনো ইউরোপীয় নাগরিক দেশ ত্যাগ করুক। এই ব্যবস্থা পারস্পরিক হবে বলেও আশা করছেন তিনি। ব্রাসেলসে ইউরোপীয় কাউন্সিলের সম্মেলনে মে বলেন ‘কেউ কোনো ধরনের কষ্টকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে না।’
বর্তমানে ব্রিটেনে ৩০ লক্ষ ২০ হাজার ইইউ নাগরিক রয়েছেন। যাদের অনেকের মনে ভয় রয়েছে যে তাদেরকে হয়তোবা ফেরত পাঠানো হবে। তবে মে জোর দিয়ে ইউকে’র ২৭ টি ইইউ পার্টনারদের বলেন, দেশটি চায় না কেউ সেখান থেকে চলে যাক বা কারো পরিবার দুভাগ হয়ে যাক।
এদিকে তার এই প্রস্তাবে সতর্ক মন্তব্য করতে দেখা গেছে কয়েকজন বিশ্ব নেতাকে। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল এটাকে ‘একটা ভাল শুরু’ এই বলে বর্ণনা করেছেন। তবে তিনি বলেছেন ব্রেক্সিটকে ঘিরে অনেক ইস্যু রয়েছে যেগুলো সমাধান করতে হবে। ইইউ এর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, যখন ইউকের পুরো প্রস্তাব সোমবার প্রকাশিত হয় তখন তারা এর ‘লাইন বাই লাইন’ পড়ে দেখেছে। ইইউ থেকে বের হয়ে যাওয়ার জন্য ইউকের হাতে ২০১৯ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত সময় রয়েছে। বিবিসি।