ঢাকা , শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

আরব আমিরাতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০১:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০১৯
  • / ১০৫৬ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ বিনম্র শ্রদ্ধায় মধ্যে দিয়ে আরব আমিরাতে পালন করা হলো অমর একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, এ দিবস উপলক্ষে একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের তাৎপর্য সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রাত ৮ টায় মিনিস্ট্রি অব কালচারের সহযোগিতায় ও কমিউনিটির উদ্যোগ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় ।

১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়। প্রতি বছরই এ দিবসটি পালন করছে আসছে আমিরাত প্রবাসীর , রাত ৮ টায় মুক্তার মিয়ার সভাপতিত্বে ও সানজিদা ইসলামের সাবলিল উপস্হাপনায় প্রধান অতিথী ছিলেন হাজী শফিকুল ইসলাম । শহীদ দিবসে প্রবাসে বেড়ে উঠা সন্তানদের মধ্যে ভাষা শহীদদের ও দিবসের তুলে ধরতেই এ দিবসের তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করা হয় ।

সব বয়স আর শ্রেণি-পেশার মানুষের পদচারণে মুখরিত হয়ে ওঠে অনুষ্টানস্হল ।এ সময় আরব আমিরাতের স্হানীয় বাসিন্দারাও ছিলেন । বিভিন্ন রাজনৈতিক , সামাজিক- সাংস্কৃতিক ও সাংবাদিকরা ছিলেন ।

পোস্ট শেয়ার করুন

আরব আমিরাতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

আপডেটের সময় : ০১:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ বিনম্র শ্রদ্ধায় মধ্যে দিয়ে আরব আমিরাতে পালন করা হলো অমর একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, এ দিবস উপলক্ষে একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের তাৎপর্য সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রাত ৮ টায় মিনিস্ট্রি অব কালচারের সহযোগিতায় ও কমিউনিটির উদ্যোগ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় ।

১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়। প্রতি বছরই এ দিবসটি পালন করছে আসছে আমিরাত প্রবাসীর , রাত ৮ টায় মুক্তার মিয়ার সভাপতিত্বে ও সানজিদা ইসলামের সাবলিল উপস্হাপনায় প্রধান অতিথী ছিলেন হাজী শফিকুল ইসলাম । শহীদ দিবসে প্রবাসে বেড়ে উঠা সন্তানদের মধ্যে ভাষা শহীদদের ও দিবসের তুলে ধরতেই এ দিবসের তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করা হয় ।

সব বয়স আর শ্রেণি-পেশার মানুষের পদচারণে মুখরিত হয়ে ওঠে অনুষ্টানস্হল ।এ সময় আরব আমিরাতের স্হানীয় বাসিন্দারাও ছিলেন । বিভিন্ন রাজনৈতিক , সামাজিক- সাংস্কৃতিক ও সাংবাদিকরা ছিলেন ।