ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে…

আমাদের দেশে মুসলিম – হিন্দুদের ভ্রাতৃত্বের বন্ধন অটুট ছিলো আছে থাকবে ———-শেখ এমদাদুর রহমান

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০৩:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯
  • / ১২৭৯ টাইম ভিউ

আমাদের দেশ হলো এমন একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ যেখানে রসিক লাল মিষ্টান্ন ভান্ডার নামক হিন্দু দোকান থেকে জিলাপি কিনে মসজিদে মিলাদ পড়ানো হয়। কোন মুসল্লি এটা নিয়ে চিন্তা না করে নিশ্চিন্তে মিলাদ শেষে জিলাপি খেতে খেতে বাড়ি যায়।

*একই এলাকার চা দোকানে একই কাপে হিন্দু মুসলিম চা খেয়ে যুগের পর যুগ বসবাস করছে। কারো মাথায় এটা নিয়ে ব্যাথা বেদনা নেই।

*স্কুল কলেজে পড়ার সময় হিন্দু আর মুসলিম বন্ধু একসাথে দুনিয়ার আকাম কুকাম করে, একই বিছানায় ঘুমিয়ে পড়াশোনা শেষ করে।

*হিন্দুদের দাওয়াতে অধিকাংশ লোক থাকে মুসলিম এলাকাবাসী, মুসলিমদের দাওয়াতেও খুব স্বাভাবিকভাবে হিন্দুরা অংশ নেয়। এতে কেউই কিছু মনে করে না।

*অফিসের ক্যান্টিনে অথবা সামাজিক কোন অনুষ্ঠানে একই টেবিলে একই প্লেটে হিন্দু মুসলিম পাশাপাশি বসে খাবার খাচ্ছে। মুসলিম লোকটি গরু মাংশ খাচ্ছে, তবুও হিন্দু লোকটি কিছু মনে না করে হেসে হেসে খোশ গল্প করে খাওয়া শেষ করে দুইজন মিলেই বাইরে গিয়ে বিড়ি খাচ্ছে আরামসে!

*পাবলিক বাসে, রিক্সায়, ক্লাসের বেঞ্চে পাশাপাশি বসে দিব্যি চলাফেরা করে হিন্দু মুসলিম। কারো কোন সমস্যা নেই।

*মসজিদ আর মন্দির একই এলাকায় আছে অনেক জায়গায়। দুই পক্ষই ইবাদত করছে। কারোরই কোন অসুবিধা হয়না যুগ যুগ ধরে।

বিশ্বের আর কোন দেশে এরকম সুন্দর দৃষ্টান্ত দেখাতে পারবেন?? এত সুন্দর সম্প্রীতি আমার জানামতে আর কোথাও নেই। ভারতে তো তা কল্পনাও করা যায়না। তবুও এত কথা কেন? এত মিথ্যা প্রপোগান্ডা কেন ছড়ানো হচ্ছে? কিছু মানুষ এর জন্য দায়ী। এরা গভীর ষড়যন্ত্র করছে বছরের পর বছর। কিন্তু এরা সফল হয়নি, সফল হতে পারবেনা। কারন আমাদের দেশের মানুষ সত্যিকার অসাম্প্রদায়িক, আমরা হিন্দু মুসলিম বিভেদ করিনা।
সংগৃহীত।।

পোস্ট শেয়ার করুন

আমাদের দেশে মুসলিম – হিন্দুদের ভ্রাতৃত্বের বন্ধন অটুট ছিলো আছে থাকবে ———-শেখ এমদাদুর রহমান

আপডেটের সময় : ০৩:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯

আমাদের দেশ হলো এমন একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ যেখানে রসিক লাল মিষ্টান্ন ভান্ডার নামক হিন্দু দোকান থেকে জিলাপি কিনে মসজিদে মিলাদ পড়ানো হয়। কোন মুসল্লি এটা নিয়ে চিন্তা না করে নিশ্চিন্তে মিলাদ শেষে জিলাপি খেতে খেতে বাড়ি যায়।

*একই এলাকার চা দোকানে একই কাপে হিন্দু মুসলিম চা খেয়ে যুগের পর যুগ বসবাস করছে। কারো মাথায় এটা নিয়ে ব্যাথা বেদনা নেই।

*স্কুল কলেজে পড়ার সময় হিন্দু আর মুসলিম বন্ধু একসাথে দুনিয়ার আকাম কুকাম করে, একই বিছানায় ঘুমিয়ে পড়াশোনা শেষ করে।

*হিন্দুদের দাওয়াতে অধিকাংশ লোক থাকে মুসলিম এলাকাবাসী, মুসলিমদের দাওয়াতেও খুব স্বাভাবিকভাবে হিন্দুরা অংশ নেয়। এতে কেউই কিছু মনে করে না।

*অফিসের ক্যান্টিনে অথবা সামাজিক কোন অনুষ্ঠানে একই টেবিলে একই প্লেটে হিন্দু মুসলিম পাশাপাশি বসে খাবার খাচ্ছে। মুসলিম লোকটি গরু মাংশ খাচ্ছে, তবুও হিন্দু লোকটি কিছু মনে না করে হেসে হেসে খোশ গল্প করে খাওয়া শেষ করে দুইজন মিলেই বাইরে গিয়ে বিড়ি খাচ্ছে আরামসে!

*পাবলিক বাসে, রিক্সায়, ক্লাসের বেঞ্চে পাশাপাশি বসে দিব্যি চলাফেরা করে হিন্দু মুসলিম। কারো কোন সমস্যা নেই।

*মসজিদ আর মন্দির একই এলাকায় আছে অনেক জায়গায়। দুই পক্ষই ইবাদত করছে। কারোরই কোন অসুবিধা হয়না যুগ যুগ ধরে।

বিশ্বের আর কোন দেশে এরকম সুন্দর দৃষ্টান্ত দেখাতে পারবেন?? এত সুন্দর সম্প্রীতি আমার জানামতে আর কোথাও নেই। ভারতে তো তা কল্পনাও করা যায়না। তবুও এত কথা কেন? এত মিথ্যা প্রপোগান্ডা কেন ছড়ানো হচ্ছে? কিছু মানুষ এর জন্য দায়ী। এরা গভীর ষড়যন্ত্র করছে বছরের পর বছর। কিন্তু এরা সফল হয়নি, সফল হতে পারবেনা। কারন আমাদের দেশের মানুষ সত্যিকার অসাম্প্রদায়িক, আমরা হিন্দু মুসলিম বিভেদ করিনা।
সংগৃহীত।।