ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আবগারি শুল্কের হার কমতে পারে : অর্থমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক :
  • আপডেটের সময় : ০৯:৪৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৪ জুন ২০১৭
  • / ১১৮৫ টাইম ভিউ

আসছে ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের বাজেটে ব্যাংক আমানতে প্রস্তাবিত আবগারী শুল্ক কমতে পারে বলে জানালেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, সংসদে বাজেট পেশ করা হয়েছে। এখন এ বিষয়ে আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এ শুল্ক আগেও ছিল। তবে এবার হারটা বাড়ানো হয়েছে। এরপর থেকেই আপনারা কথা বলা শুরু করেছেন। বাজেটে এ শুল্ক বহাল থাকবে কিন্তু হারটা কিছুটা কমানো হতে পারে।মঙ্গলবার আবগারি শুল্ক প্রত্যাহারের বিষয়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রী’র বক্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, হি ইজ নট রেসপনসিবল পারসন।মঙ্গলবার বাজেট আলোচনায় ব্যাংক আমানতে প্রস্তাবিত আবগারী শুল্ক কমাতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছিলেন, বিষয়টি নিয়ে অনেকে কথা বলেছেন। আমার বিশ্বাস আমাদের প্রধান নেতৃত্ব এবং অর্থমন্ত্রী বোবা-কালা নন। তারা জনগণের মধ্যে বসবাস করেন। সংসদ সদস্যদের কথা শুনে এবং বাইরে জনগণের কথার প্রেক্ষিতে এ বিষয়ে আমরা একটা গ্রহণযোগ্য সমাধানে আসতে পারবো।সোমবার জাতীয় সংসদে বাজেট আলোচনায় আবগারি শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাবে সাংসদ আবদুল মান্নান বলেছিলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংক আমানতে আবগারি শুল্ক বাড়ানোর বিষয়টি জেদ ধরার বিষয় নয়। আওয়ামী লীগ মানুষের রাজনীতি করে। মানুষের চাওয়া-পাওয়াকে প্রাধান্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী কাজ করছেন। মানুষ এ শুল্ক চায় না।গেলো বৃহস্পতিবার সিলেটে এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, আবগারি শুল্ক প্রত্যাহারে আমার কোনো পরিকল্পনা নেই। তবু এ ব্যাপারে সংসদে আলোচনা হবে। সংসদই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। এ ছাড়া এক লাখের নিচে ব্যাংকে টাকা রাখলে কোনো শুল্ক দিতে হবে না। আগে ২০ হাজার টাকা রাখলেই শুল্ক দিতে হতো।২০১৭-১৮ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংক হিসেবে এক লাখ টাকার বেশি স্থিতি থাকলে আবগারি শুল্ক ৫০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮০০ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া ১০ লাখ থেকে ১ কোটি টাকা পর্যন্ত ১ হাজার ৫০০ টাকার বদলে ২ হাজার ৫০০ টাকা, ১ কোটি থেকে ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত ৭ হাজার ৫০০ টাকার বদলে ১২ হাজার টাকা এবং ৫ কোটি টাকার বেশি লেনদেনে ১৫ হাজার টাকার বদলে ২৫ হাজার টাকা আবগারি শুল্ক আরোপ করা হবে।

পোস্ট শেয়ার করুন

আবগারি শুল্কের হার কমতে পারে : অর্থমন্ত্রী

আপডেটের সময় : ০৯:৪৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৪ জুন ২০১৭

আসছে ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের বাজেটে ব্যাংক আমানতে প্রস্তাবিত আবগারী শুল্ক কমতে পারে বলে জানালেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, সংসদে বাজেট পেশ করা হয়েছে। এখন এ বিষয়ে আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এ শুল্ক আগেও ছিল। তবে এবার হারটা বাড়ানো হয়েছে। এরপর থেকেই আপনারা কথা বলা শুরু করেছেন। বাজেটে এ শুল্ক বহাল থাকবে কিন্তু হারটা কিছুটা কমানো হতে পারে।মঙ্গলবার আবগারি শুল্ক প্রত্যাহারের বিষয়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রী’র বক্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, হি ইজ নট রেসপনসিবল পারসন।মঙ্গলবার বাজেট আলোচনায় ব্যাংক আমানতে প্রস্তাবিত আবগারী শুল্ক কমাতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছিলেন, বিষয়টি নিয়ে অনেকে কথা বলেছেন। আমার বিশ্বাস আমাদের প্রধান নেতৃত্ব এবং অর্থমন্ত্রী বোবা-কালা নন। তারা জনগণের মধ্যে বসবাস করেন। সংসদ সদস্যদের কথা শুনে এবং বাইরে জনগণের কথার প্রেক্ষিতে এ বিষয়ে আমরা একটা গ্রহণযোগ্য সমাধানে আসতে পারবো।সোমবার জাতীয় সংসদে বাজেট আলোচনায় আবগারি শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাবে সাংসদ আবদুল মান্নান বলেছিলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংক আমানতে আবগারি শুল্ক বাড়ানোর বিষয়টি জেদ ধরার বিষয় নয়। আওয়ামী লীগ মানুষের রাজনীতি করে। মানুষের চাওয়া-পাওয়াকে প্রাধান্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী কাজ করছেন। মানুষ এ শুল্ক চায় না।গেলো বৃহস্পতিবার সিলেটে এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, আবগারি শুল্ক প্রত্যাহারে আমার কোনো পরিকল্পনা নেই। তবু এ ব্যাপারে সংসদে আলোচনা হবে। সংসদই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। এ ছাড়া এক লাখের নিচে ব্যাংকে টাকা রাখলে কোনো শুল্ক দিতে হবে না। আগে ২০ হাজার টাকা রাখলেই শুল্ক দিতে হতো।২০১৭-১৮ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংক হিসেবে এক লাখ টাকার বেশি স্থিতি থাকলে আবগারি শুল্ক ৫০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮০০ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া ১০ লাখ থেকে ১ কোটি টাকা পর্যন্ত ১ হাজার ৫০০ টাকার বদলে ২ হাজার ৫০০ টাকা, ১ কোটি থেকে ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত ৭ হাজার ৫০০ টাকার বদলে ১২ হাজার টাকা এবং ৫ কোটি টাকার বেশি লেনদেনে ১৫ হাজার টাকার বদলে ২৫ হাজার টাকা আবগারি শুল্ক আরোপ করা হবে।