ঢাকা , সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
বাংলাদেশে কোটা আন্দোলনে হত্যার প্রতিবাদে পর্তুগালে বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশী প্রবাসীরা প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর

‘আওয়ামী লীগ করার কারণেই আমার বাবার মৃত্যু হয়েছে জেলখানায়’

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ১১:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০১৯
  • / ৩৭২ টাইম ভিউ

‘আমার বাবা দলের নিবেদিত কর্মী ছিলেন। দলের বিষয়ে সে ছিল অন্ধ। আওয়ামী লীগ করার কারণেই আমার বাবার মৃত্যু হয়েছে জেলখানায়। আপনার তার জন্য দোয়া করবেন’।

কথাগুলো বলেছেন জেলখানায় মৃত্যু হওয়া আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল জলিল ওরফে জলিল ভিপির ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান জিমি।

সোমবার রাত সাড়ে ৭টায় আব্দুল আজিজ মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে জানাজা নামাজে জিমি এসব কথা বলেন।

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, এসএম কলেজের সাবেক ভিপি আব্দুল জলিল হাওলাদার(৬১) আজ সোমবার বেলা ৯টার দিকে পিরোজপুর জেলখানায় মৃত্যুবরণ করেন। সেখানে দাপ্তরিক সকল পদ্ধতি ও পোস্টমর্টেম শেষে বিকেল ৬ টার দিকে তার মরদেহ মোরেলগঞ্জে আনা হয়।

পিরোজপুরে একটি নারী নির্যাতন মামলায় প্রথমে ১৮ বছর ও পরে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ছিলেন আব্দুল জলিল। ২০১৮ সালের ২রা মার্চ পুলিশ তাকে গ্রেফতারকরে পিরোজপুর কারাগারে প্রেরণ করে। সেখানে এক বছর দুই মাস ৮ দিন কারাবন্দী থাকা অবস্থায় আজ তিনি মারা যান।

জলিল ভিপি কারাগারে থাকাকালে কয়েকবার অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। কিন্তু দীর্ঘ ওই সময়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের তরফ থেকে কেউ তার খোঁজখবর না নেওয়ায় জানাজা মাঠে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ছেলে জিমি।

জলিল ভিপির জানাজায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. আমিরুল আলম মিলন, সাধারণ সম্পাদক এম এমদাদুল হক, পৌরসভা মেয়র অ্যাড. এনিরুল হক তালুকদারসহ শতশত লোক অংশগ্রহণ করেন। জানাজা শেষে সোমবার রাত ৮টার দিকে বারইখালী গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

পোস্ট শেয়ার করুন

‘আওয়ামী লীগ করার কারণেই আমার বাবার মৃত্যু হয়েছে জেলখানায়’

আপডেটের সময় : ১১:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০১৯

‘আমার বাবা দলের নিবেদিত কর্মী ছিলেন। দলের বিষয়ে সে ছিল অন্ধ। আওয়ামী লীগ করার কারণেই আমার বাবার মৃত্যু হয়েছে জেলখানায়। আপনার তার জন্য দোয়া করবেন’।

কথাগুলো বলেছেন জেলখানায় মৃত্যু হওয়া আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল জলিল ওরফে জলিল ভিপির ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান জিমি।

সোমবার রাত সাড়ে ৭টায় আব্দুল আজিজ মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে জানাজা নামাজে জিমি এসব কথা বলেন।

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, এসএম কলেজের সাবেক ভিপি আব্দুল জলিল হাওলাদার(৬১) আজ সোমবার বেলা ৯টার দিকে পিরোজপুর জেলখানায় মৃত্যুবরণ করেন। সেখানে দাপ্তরিক সকল পদ্ধতি ও পোস্টমর্টেম শেষে বিকেল ৬ টার দিকে তার মরদেহ মোরেলগঞ্জে আনা হয়।

পিরোজপুরে একটি নারী নির্যাতন মামলায় প্রথমে ১৮ বছর ও পরে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ছিলেন আব্দুল জলিল। ২০১৮ সালের ২রা মার্চ পুলিশ তাকে গ্রেফতারকরে পিরোজপুর কারাগারে প্রেরণ করে। সেখানে এক বছর দুই মাস ৮ দিন কারাবন্দী থাকা অবস্থায় আজ তিনি মারা যান।

জলিল ভিপি কারাগারে থাকাকালে কয়েকবার অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। কিন্তু দীর্ঘ ওই সময়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের তরফ থেকে কেউ তার খোঁজখবর না নেওয়ায় জানাজা মাঠে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ছেলে জিমি।

জলিল ভিপির জানাজায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. আমিরুল আলম মিলন, সাধারণ সম্পাদক এম এমদাদুল হক, পৌরসভা মেয়র অ্যাড. এনিরুল হক তালুকদারসহ শতশত লোক অংশগ্রহণ করেন। জানাজা শেষে সোমবার রাত ৮টার দিকে বারইখালী গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন