ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে… এই অভ্যাসগুলোর চর্চা নিয়মিত করা উচিৎ স্বামী-স্ত্রীর বয়সের পার্থক্য থাকা জরুরি কেনো ? পুনাক এর উদ্যোগে দুস্হ ও অসহায় নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন করা হয়েছে কুলাউড়ার টিলাগাঁও এ সরকারি গাছ বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক লটারি বাইক জিতলো মা’ সে কারণে কপাল পুড়লো মেয়ের ফজরের নামাজে যাওয়ার সময় রাস্তায় কুকুর দলের আক্রমনে প্রান গেলো ইজাজুলের সাবেক সাংসদ সেলিমা আহমাদ মেরীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামিলীগের মতবিনিময় সভা

আইপিএলের স্পন্সর হতে চায় রামদেবের পতঞ্জলি

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ১২:০১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ অগাস্ট ২০২০
  • / ৩৪৭ টাইম ভিউ

চীনের সঙ্গে সীমান্ত উত্তেজনার প্রভাব পড়েছে ভারতীয় ক্রিকেট অঙ্গনেও। এরই মধ্যে জমজমাট ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি লীগ আইপিএলের স্পন্সরশিপ থেকে সরে দাঁড়িয়েছে চায়না স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভো। আইপিএলের ১৩তম আসর মাঠে গড়াতে খুব বেশি দেরি নেই। নতুন স্পন্সর পেতে তাই তোড়জোর চালাচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। এমন পরিস্থিতিতে আইপিএলের টাইটেল স্পন্সর হওয়ার আগ্রহ দেখালো ভারতের যোগব্যায়াম গুরু বাবা রামদেবের প্রতিষ্ঠান পতঞ্জলি।

২০০৬ সাল থেকে বিভিন্ন আয়ুর্বেদ ও হারবাল প্রডাক্ট উৎপাদন করছে রামদেবের পতঞ্জলি। ভারতীয়দের কাছে পতঞ্জলি পণ্যের ভালো গ্রহণযোগ্যতা আছে। এবার আইপিএলের মাধ্যমে দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে বিদেশেও নিজের প্রডাক্ট ছড়িয়ে দিতে চাইছেন রামদেব। সংবাদমাধ্যম ইকোনমিক টাইমসকে পতঞ্জলির মুখপাত্র এসকে তিজারাওয়ালা বলেন, ‘এ বছর আইপিএলের টাইটেল স্পন্সর হওয়ার কথা ভাবছি আমরা।

আমরা পতঞ্জলি ব্র্যান্ডকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে চাই।’ আর ব্র্যান্ড বিশ্লেষক হরিষ বিজরের মতে, পতঞ্জলি টাইটেল স্পন্সর হলে তাদেরই বেশি লাভ হবে। তার ধারণা, জাতীয়তাবাদের প্রেক্ষাপট থেকে পতঞ্জলির স্পন্সর হওয়াটা ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। কারণ ভারতজুড়ে এখন চীন বিরোধী জোয়ার চলছে।

২০১৮তে ৪৪০ কোটিতে টাইটেল স্পন্সর হয়েছিল ভিভো। তবে গত সপ্তাহে ভিভোর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ার বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করে বিসিসিআই। এরপর আইপিএলের টাইটেল স্পন্সর হওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছে জিও, অ্যামাজন, টাটা গ্রুপ, ড্রিম ১১ এবং বাইজুসের মতো প্রতিষ্ঠান। আর বাইজুস বর্তমানে ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের অফিসিয়াল স্পন্সর। দেখা যাক, রামদেবের পতঞ্জলি তাদের সঙ্গে লড়াইয়ে জয়ী হতে পারে কিনা।

পোস্ট শেয়ার করুন

আইপিএলের স্পন্সর হতে চায় রামদেবের পতঞ্জলি

আপডেটের সময় : ১২:০১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ অগাস্ট ২০২০

চীনের সঙ্গে সীমান্ত উত্তেজনার প্রভাব পড়েছে ভারতীয় ক্রিকেট অঙ্গনেও। এরই মধ্যে জমজমাট ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি লীগ আইপিএলের স্পন্সরশিপ থেকে সরে দাঁড়িয়েছে চায়না স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভো। আইপিএলের ১৩তম আসর মাঠে গড়াতে খুব বেশি দেরি নেই। নতুন স্পন্সর পেতে তাই তোড়জোর চালাচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। এমন পরিস্থিতিতে আইপিএলের টাইটেল স্পন্সর হওয়ার আগ্রহ দেখালো ভারতের যোগব্যায়াম গুরু বাবা রামদেবের প্রতিষ্ঠান পতঞ্জলি।

২০০৬ সাল থেকে বিভিন্ন আয়ুর্বেদ ও হারবাল প্রডাক্ট উৎপাদন করছে রামদেবের পতঞ্জলি। ভারতীয়দের কাছে পতঞ্জলি পণ্যের ভালো গ্রহণযোগ্যতা আছে। এবার আইপিএলের মাধ্যমে দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে বিদেশেও নিজের প্রডাক্ট ছড়িয়ে দিতে চাইছেন রামদেব। সংবাদমাধ্যম ইকোনমিক টাইমসকে পতঞ্জলির মুখপাত্র এসকে তিজারাওয়ালা বলেন, ‘এ বছর আইপিএলের টাইটেল স্পন্সর হওয়ার কথা ভাবছি আমরা।

আমরা পতঞ্জলি ব্র্যান্ডকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে চাই।’ আর ব্র্যান্ড বিশ্লেষক হরিষ বিজরের মতে, পতঞ্জলি টাইটেল স্পন্সর হলে তাদেরই বেশি লাভ হবে। তার ধারণা, জাতীয়তাবাদের প্রেক্ষাপট থেকে পতঞ্জলির স্পন্সর হওয়াটা ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। কারণ ভারতজুড়ে এখন চীন বিরোধী জোয়ার চলছে।

২০১৮তে ৪৪০ কোটিতে টাইটেল স্পন্সর হয়েছিল ভিভো। তবে গত সপ্তাহে ভিভোর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ার বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করে বিসিসিআই। এরপর আইপিএলের টাইটেল স্পন্সর হওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছে জিও, অ্যামাজন, টাটা গ্রুপ, ড্রিম ১১ এবং বাইজুসের মতো প্রতিষ্ঠান। আর বাইজুস বর্তমানে ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের অফিসিয়াল স্পন্সর। দেখা যাক, রামদেবের পতঞ্জলি তাদের সঙ্গে লড়াইয়ে জয়ী হতে পারে কিনা।