ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অবশেষে কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ চালু করতে চুক্তি

দেশদিগন্ত ডেক্স
  • আপডেটের সময় : ০১:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭
  • / ৯৭৪ টাইম ভিউ

অবশেষে কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ চালু করতে ভারতীয় এক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করেছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। ১৯১০ সালে চালু হওয়া কুলাউড়া-শাহবাজপুর সেকশন ২০০২ সালে বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৫ সালে কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ অংশের পুনর্বাসনে ভারতীয় প্রতিষ্ঠানকে পরামর্শক নিয়োগ দেয় রেলপথ মন্ত্রণালয়।

প্রকল্পের মোট প্রাক্কলিত ব্যয় ৬৭৮ কোটি টাকার মধ্যে ভারত ঋণ হিসেবে ৫৫৬ কোটি টাকা এবং সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ১২২ কোটি টাকা জোগান দেয়া হবে। ১৫ নভেম্বর বুধবার রেলপথ মন্ত্রণালয়ে এ চুক্তি স্বাক্ষর করেন রেলের মহাব্যবস্থাপক (পূর্ব) আবদুল হাই এবং ভারতীয় প্রতিষ্ঠান ‘কালিন্দী রেল নির্মাণ’-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট (ওভারসিস প্রজেক্ট) শারদ শর্মা।

বর্তমান সরকারের সময়ে অনেক রেল প্রকল্প ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, অনেকগুলো প্রকল্প চলমান আছে, ‘এই প্রকল্পটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কালিন্দী রেল নির্মাণের কাছে আমার অনুরোধ থাকবে কাজটা যাতে তারা দ্রুত করেন এবং কাজের গুণগতমান যেনো ভাল হয়। অনুষ্ঠানে রেলপথ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ রেলওয়ে, ভারতীয় হাইকমিশন, কালিন্দী রেল নির্মাণ ও ভারতের এক্সিম ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিতি ছিলেন।

পোস্ট শেয়ার করুন

অবশেষে কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ চালু করতে চুক্তি

আপডেটের সময় : ০১:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭

অবশেষে কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ চালু করতে ভারতীয় এক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করেছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। ১৯১০ সালে চালু হওয়া কুলাউড়া-শাহবাজপুর সেকশন ২০০২ সালে বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৫ সালে কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ অংশের পুনর্বাসনে ভারতীয় প্রতিষ্ঠানকে পরামর্শক নিয়োগ দেয় রেলপথ মন্ত্রণালয়।

প্রকল্পের মোট প্রাক্কলিত ব্যয় ৬৭৮ কোটি টাকার মধ্যে ভারত ঋণ হিসেবে ৫৫৬ কোটি টাকা এবং সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ১২২ কোটি টাকা জোগান দেয়া হবে। ১৫ নভেম্বর বুধবার রেলপথ মন্ত্রণালয়ে এ চুক্তি স্বাক্ষর করেন রেলের মহাব্যবস্থাপক (পূর্ব) আবদুল হাই এবং ভারতীয় প্রতিষ্ঠান ‘কালিন্দী রেল নির্মাণ’-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট (ওভারসিস প্রজেক্ট) শারদ শর্মা।

বর্তমান সরকারের সময়ে অনেক রেল প্রকল্প ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, অনেকগুলো প্রকল্প চলমান আছে, ‘এই প্রকল্পটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কালিন্দী রেল নির্মাণের কাছে আমার অনুরোধ থাকবে কাজটা যাতে তারা দ্রুত করেন এবং কাজের গুণগতমান যেনো ভাল হয়। অনুষ্ঠানে রেলপথ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ রেলওয়ে, ভারতীয় হাইকমিশন, কালিন্দী রেল নির্মাণ ও ভারতের এক্সিম ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিতি ছিলেন।